মাইক্রোসফট অফিস অ্যাপ্লিকেশন কোর্স (৩৬০ ঘণ্টা)- ৬ মাস মেয়াদী

আমাদের মাইক্রোসফট অফিস অ্যাপ্লিকেশন কোর্সটি কারিগরি শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক অনুমোদিত ৬ (ছয়) মাস মেয়াদী সার্টিফিকেশন কোর্স। কোর্স শেষে আপনি কারিগরি বোর্ডের অধীনে পরীক্ষা দিতে পারবেন।

বেসিক কোর্স

টাকা3500
টাকা ২৫০০ / ১৫ দিন
  • মাইক্রোসফট ওয়ার্ড, এক্সেল, এক্সেস, পাওয়ার পয়েন্ট, ইন্টারনেট অ্যাসেন্সিয়াল, কম্পিউটার ফান্ডামেন্টাল
  • বাংলা টাইপিং এবং ইংরেজি টাইপিং​
  • ১৫ টি ক্লাস এবং ১ দিন ঐচ্ছিক ছুটি
  • দুই কিস্তিতে পরিশোধ এবং পৃথক পৃথক ক্লাস​
  • প্রিটিং স্ক্যানিং এবং উই ন্ডোজ সেট আপ
  • মাইক্রোসফট এক্সেল অ্যাডভান্স মডিউল
  • বেসিক ফটোশপ (ব্যানার, ছবি থেকে ছবি, কালার সম্পর্কে ধারনা, পাসপোর্ট সাইজ ছবি, )
  • টাইপিং মাস্টার প্রো

অ্যাডভান্স কোর্স

টাকা5000
টাকা ৩৭৫০ /৩০ দিন
  • মাইক্রোসফট ওয়ার্ড, এক্সেল, এক্সেস, পাওয়ার পয়েন্ট, ইন্টারনেট অ্যাসেন্সিয়াল, কম্পিউটার ফান্ডামেন্টাল
  • বাংলা টাইপিং এবং ইংরেজি টাইপিং​
  • ৩০ টি ক্লাস এবং ৩ দিন ঐচ্ছিক ছুটি
  • দুই কিস্তিতে পরিশোধ এবং পৃথক পৃথক ক্লাস
  • প্রিটিং স্ক্যানিং এবং উই ন্ডোজ সেট আপ
  • মাইক্রোসফট এক্সেল অ্যাডভান্স মডিউল
  • বেসিক ফটোশপ (ব্যানার, ছবি থেকে ছবি, কালার সম্পর্কে ধারনা, পাসপোর্ট সাইজ ছবি, )
  • টাইপিং মাস্টার প্রো
জনপ্রিয়

এক্সপার্ট
কোর্স

টাকা8000
টাকা ৬০০০ / ৩৬ দিন
  • মাইক্রোসফট ওয়ার্ড, এক্সেল, এক্সেস, পাওয়ার পয়েন্ট, ইন্টারনেট অ্যাসেন্সিয়াল, কম্পিউটার ফান্ডামেন্টাল, বাংলা টাইপিং এবং ইংরেজি টাইপিং​
  • বাংলা টাইপিং এবং ইংরেজি টাইপিং​
  • ৪৮ টি ক্লাস এবং ৭ দিন ঐচ্ছিক ছুটি
  • দুই কিস্তিতে পরিশোধ এবং পৃথক পৃথক ক্লাস
  • প্রিটিং স্ক্যানিং এবং উই ন্ডোজ সেট আপ
  • মাইক্রোসফট এক্সেল অ্যাডভান্স মডিউল
  • বেসিক ফটোশপ (ব্যানার, ছবি থেকে ছবি, কালার সম্পর্কে ধারনা, পাসপোর্ট সাইজ ছবি, )
  • টাইপিং মাস্টার প্রো​​

ছবি, এসএসসি সার্টিফিকেট ফটোকপি জমা দিতে হবে! আইডি কার্ড এবং মডিউল সংগ্রহ করে নিতে হবে!

আপনি ভর্তি হবার সময় সিদ্ধান্ত নিয়ে নিন যে আপনার কতটুকু সময় হাতে আছে এই কোর্সটি শেষ করার জন্যে। কোর্স করা কালীন সময়ে কোন ভাবেই ক্লাস মিস করা যাবে না। কারন আপনি কোর্সে জয়েন করার আগেই জেনে গেছেন আপনার ক্লাস সিডিউল এবং আপনার ব্যক্তিগত ব্যস্ততা। তাই কোর্সে যুক্ত হবার আগে বুঝে নিন আপনি সব ক্লাস ঠিকমতো অংশগ্রহন করতে পারবেন কিনা! ক্লাস মিস দেয়ার চেয়ে কোর্স না করাই ভালো।আপনার এবং আমাদের সময় এবং অর্থের গুরুত্ব এক্ষেত্রে মুখ্য। আপনি সঠিক নির্দেশনায় কাজ করলে কোর্সটি আপনার কাছে পানি ভাতের মতো সহজ হয়ে উঠবে

টাইপিং স্পীড

ইংরেজি এবং বাংলা টাইপিং স্পিড বাড়ানো ছাড়া এই কোর্স করার কোন মানে হয়না। কারন ইন্টারনেটের যুগে আপনি ইউটিউব খুললেই আপনি হাজার হাজার ভিডিও কনটেন্ট পাবেন এই কোর্সের উপরে। আমাদের ট্রেনিং ইন্সটিটিউটে আপনি হাতে কলমে (কম্পিউটারে) শিক্ষকের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধায়নে শিখবেন, সাথে সাথে ইংরেজি এবং বাংলা টাইপিং স্পীড অনেকটাই বেড়ে যাবে আমাদের শেখানো “টাচ টাইপিং” পদ্ধতিতে যেখানে আপনি কীবোর্ডের দিকে না তাকিয়েই অনায়াসেই টাইপ করতে পারবেন!

প্রত্যেক শিক্ষার্থীর জন্যে আলাদা আলাদা পৃথক কম্পিউটারের ব্যবস্থা আছে,

প্রশিক্ষণ পদ্ধতি

যেহেতু সবাইকে আলাদা আলাদা নির্দিষ্ট কম্পিউটারে প্রশিক্ষন দেয়া হয় সেহেতু আপনি যেকোনো সময়ে ভর্তি হয়ে ক্লাস শুরু করতে পারেন।

আমাদের প্রতিটি বিষয়ের উপরে আলাদা আলাদা লেকচার শিট আছে। সেগুলো দিয়ে আপনি ক্লাসে বসে প্র্যাকটিস করতে পারবেন। তাছাড়া আপনি যদি চান সেগুলো প্রিন্ট বা ফটোকপি করেও নিতে পারে ন!

আপনি ভর্তি হবার সময়েই আপনার জন্যে নির্দিষ্ট কোর্স মডিউল সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের কাছ থেকে বুঝে নিবেন। পুরো কোর্স জুড়ে আপনি কি কি শিখবেন তা প্রথম দিনেই আপনাকে বুঝিয়ে দেয়া হবে। এখানে দায়সারা গোছের কোন ট্রেনিং করানো হয়না।